নিউজ টপ লাইন

রংপুর সিটি নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে মেয়র পদে সামসুজ্জামান সামুকে দেখতে চান নেতাকর্মীরা

আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে ধানের শীষ প্রতীকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির রংপুর মহানগর কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক, সাবেক জেলা ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা, বিগত আন্দোলন-সংগ্রামের নেতৃত্বদান কারী সাহসী যোদ্ধা, বিএনপির সর্বস্থরের নেতাকর্মীর সুখ-দু:খের সঙ্গী,অতি আপনজন, রংপুরের রাজনীতিতে জনপ্রিয় জননেতা সামসুজ্জামান সামুকে দেখতে চান রংপুর মহানগর বিএনপি,ছাত্রদল,যুবদল,ওলামাদল,কৃষকদল, জাসাস, সেচ্ছাসেবকদল, শ্রমকিদল, রিকসা শ্রমিকদলসহ রংপুরের সর্বস্থরের নেতাকর্মীরা। এছাড়াও রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ সামুকে বিএনপির মেয়র পদে দখতে চান।
এ লক্ষ্যে মহানগরের ৩৩টি ওয়ার্ডে বৈঠক করেছে বিএনপি নেতাকর্মীরা। বিভিন্ন ওয়ার্র্ডে সভা-বৈঠকে  মহান স্বাধীনতার ঘোষক ,বাংলাদেশর বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তক,শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সহধর্মীনি বিএনপির চেয়ারপার্সন সাবেক তিনবারে সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও আগামীদিনে রাষ্ট্রনায়ক বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানাচ্ছেন সামুর সমর্থকরা। পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন অনিয়ম,দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি ও লুটপাটের চিত্র তুলে ধরছেন। সমর্থকরা ছুটছেন গ্রাম-গঞ্জে,অফিস-আদালতে,বাড়ী-বাড়ী। বিএনপির তৃণমুলের নেতাকর্মীরা জানান, সামসুজ্জামান সামু রংপুর বিএনপির প্রাণ। তিনি ১৯৭৯ সাল থেকে ছাত্রদলের মাধ্যমে জাতীয়তাবাদী রাজনীতিতে প্রবেশ করে বিভিন্ন গুরুত্বপুণ পদে দায়িত্বপালন করেছেন। সরকারের রোষানলে পড়ে জেল খেটেছেন। অসংখ্যা মামলা মোকাবিলা করেছেন তিনি। শরীরে এখনো রয়েছে পুলিশের পিটুনির চিহ্ন। হয়েছেন অর্ধ শতাধিক ষড়যন্ত্র  মুরক মামলার  প্রধান আসামী।এ কারণে দীর্ঘ ৪ বছর যাবত পলাতক জীবন যাপন করছেন তিনি।
বিএনপির নেতা সামু মেয়র নির্বাচিত হলে রংপুর সিটিকে একটি পরিকল্পিত নগরীতে পরিণত করার প্রতিশ্র“তি দেবেন।
এ ব্যাপারে বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকরা জানান, জীবনে শুরু থেকেই মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের  আর্দশের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। ছোটবেলা থেকেই এই রংপুরের মানুষের সঙ্গে মিশে বড় হয়েছি। বিশেষ করে রংপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের পর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়াও রংপুরসহ বিভিন্ন স্থানে উন্নয়ন ও সামাজিক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন। সামু ১৯৭৯ সালের পর থেকে উত্তরবঙ্গের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সমৃক্ত হন। পরে তিনি ওই কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। সামু  রংপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ছাত্রদল কেন্দ্রীয়ং কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন ২ বার। জেলা বিএনপির সদস্য থেকে শুরু করে যুগ্ন আহবায়ক পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে। এজন্য যোগ্য,সুশিক্ষিক, মেধাবী পরিছন্ন রাজনীতিবীদ সামসুজ্জামান সামুকে আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে দেখতে চান রংপুর বিএনপির সর্বস্থরের নেতাকর্মী ও সমর্থক এবং রংপুরবাসী

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top