নিউজ টপ লাইন
মুজিবনগর দিবস পালন ‘ফার্মের মুরগি’ নয় ‘দেশি মুরগি’দরকার ওবায়দুল কাদের

মুজিবনগর দিবস পালন ‘ফার্মের মুরগি’ নয় ‘দেশি মুরগি’দরকার ওবায়দুল কাদের

যথাযথ মর্যাদায় পালন হয়েছে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। দিনটি উপলক্ষে ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। এ দিন মেহেরপুরের মুজিবনগরে আলোচনা সভায় এক অনুষ্ঠানে দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ‘অনুপ্রবেশকারীদের’ ‘ফার্মের মুরগি’ আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, ফার্মের মুরগি বিদায় করে দেশি মুরগি ঢোকাতে হবে।  অনুপ্রবেশকারী সম্পর্কে দলের লোকদের সাবধান করে তিনি বলেন, ‘সিলেটে কাউয়া বলেছিলাম। এখানে কাউয়া বলব না।
তিনি অভিযোগ করেন, বর্তমান সরকারের আমলে তিস্তা চুক্তি যাতে না হয়, সেজন্য বিএনপি ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। সোমবার ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে রক্ষিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সকাল ৭টায় প্রথমে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে, পরে দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শেখ হাসিনা। এ সময় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, আবদুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, কৃষি সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য গোলাম রাব্বানী চিনু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর দলের বিভিন্ন সহযোগী ও ভাতৃপ্রতীম সংগঠন যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগসহ আওয়ামী লীগের সমর্থক সংগঠনের নেতারা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
দিনটি পালনের অংশ হিসেবে এ দিন সকাল ৬টায় বঙ্গবন্ধু ভবন ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় এবং দেশের সব দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। একই সময় মুজিবনগরে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। তিস্তা চুক্তি নিয়ে বিএনপির নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির ব্যাপারে এ দিন ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিএনপি ইস্যু তৈরির কারখানা, তাদের কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি নেই। মুজিবনগর দিবসের ইতিহাস তুলে ধরে তিনি বলেন, আজকের দিনের শপথ- সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদমুক্ত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তোলা। পঁচাত্তর পরবর্তী এ দেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভূলুণ্ঠিত হয়েছে। তাই আজ সময় এসেছে, ২১ বছর ধরে চলা সাম্প্রদায়িক বিষবৃক্ষকে উৎপাটনের। আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে কেউ পরাজিত করতে পারবে না। তিস্তা চুক্তি যেন না হয় সেজন্য বিএনপি ভারত সরকারের এক মন্ত্রী ও তৃণমূলের সঙ্গে যোগাযোগ করছে বলে কিছু গণমাধ্যমের খবর প্রসঙ্গে প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ বিষয়ে কিছু জানি না। তবে শেখ হাসিনা সরকারের আমলে তিস্তা চুক্তি যেন না হয়, সেটা অবশ্য বিএনপির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। দিনটি কেন্দ্রীয়ভাবে মেহেরপুরের মুজিবনগরে পালন হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি বলেন, বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে, আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হলে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। তিনি আরও বলেন, ১৭ এপ্রিল যারা পালন করে না, তারা স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধকে স্বীকার করে না।
অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয় দিয়ে এবং নিজামী-মুজাহিদদের রাজনৈতিক পুনর্বাসন করে ‘খুনি জিয়া’ প্রমাণ করেছেন তিনি পাকিস্তানের চর ছিলেন। মন্ত্রী আরও বলেন, মেহেরপুরের এ মুজিবনগরে মুজিবনগর কমপ্লেক্সের কাজের মান আন্তর্জাতিক পর্যায়ের হয়নি। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী বরাদ্দ করেছেন, যা দিয়ে নতুন করে কাজ করা হবে। দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, পাকিস্তানি সেনা অফিসার আসলাম বেগের চিঠিতে প্রমাণ মেলে, জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের এজেন্ট ছিলেন। তিনি পাকিস্তানের চর হিসেবে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। সভাপতির বক্তব্যে মুজিবনগর দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মোহাম্মদ নাসিম এমপি বলেন, সংবিধানের আলোকে সঠিক সময়েই নির্বাচন হবে।  জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বিজয় ছাড়া বিকল্প নেই। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মামুন স্বপন এমপি, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন, কেন্দ্রীয় শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, কেন্দ্রীয় নেত্রী পারভিন জামান কল্পনা, অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন এমপি, মকবুল হোসেন এমপি, আলী আজগর টগর এমপি, আবদুল হাই এমপি, মাগুরা জেলা পরিষদের  চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুমার, জেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি আবদুল খালেক, মেহেরপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম রসুল, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগসহ স্থানীয় নেতারা বক্তব্য দেন।
শেকৃবিতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন : শেকৃবি প্রতিনিধি জানান, রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে সোমবার নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এতে অংশ নেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিক। সকাল ১০টায় একাডেমিক ভবনের সামনে স্বাধীনতা চত্বরে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ, প্রক্টর, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা পরিচালক উপস্থিত ছিলেন।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top